বেজোস, মাস্কসহ শীর্ষ ধনীদের বিরুদ্ধে আয়কর ফাঁকির অভিযোগ

বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তি আমাজনের প্রধান নির্বাহী জেফ বেজোস থেকে শুরু করে টেসলার সিইও এলন মাস্ক, ব্লুমবার্গের প্রতিষ্ঠাতা মাইকেল ব্লুমবার্গ— সবার বিরুদ্ধে আয়কর ফাঁকির অভিযোগ উঠেছে।
 
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, ইন্টারনাল রেভিনিউ সার্ভিস (আইআরএস)-এর তথ্য খতিয়ে দেখে এই অভিযোগ করেছে প্রোপাব্লিকা নামের একটি সংস্থা।
 
তাদের দাবি, ২০০৭ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত কোনো আয়কর নাকি দেননি বেজোস। মাস্ক আয়কর দেননি ২০১৮ সালে। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ওয়ারেন বাফেট কর হিসাবে দিয়েছেন আয়ের মাত্র ০.১ শতাংশ। সাম্প্রতিক সময়ে নাকি আয়কর দেননি ব্লুমবার্গও।
 
প্রোপাব্লিকা জানিয়েছে, আইআরএসের এক কর্মকর্তার কাছ থেকে এই তথ্য তারা পেয়েছে। যদিও তথ্যদাতার নাম জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি।
 
এই অভিযোগ সামনে আসার পরেই অবশ্য ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁসের অভিযোগ উঠেছে।
 
আইআরএসের কমিশনার চার্লস রেটিগ বলেছেন, ‘‘কীভাবে এই তথ্য বাইরে এল সেই বিষয়ে তদন্ত করে দেখা হবে। কারণ প্রত্যেক আমেরিকানের তথ্য গোপন থাকার কথা। এই তথ্য বাইরে আসা সংস্থার পক্ষে ক্ষতিকারক।’’
 
এ দিকে ওয়ারেন বাফেট ও ব্লুমবার্গ জানিয়েছেন, নির্দিষ্ট আয়কর দিয়েছেন তারা। তবে বেজোস বা মাস্ক কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর