রিজার্ভের রেকর্ড ছাড়াল ৪৫ বিলিয়ন ডলার

বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ প্রথমবারের মতো ৪ হাজার ৫০০ কোটি (৪৫ বিলিয়ন) ডলার ছাড়িয়েছে। সোমবার দিন শেষে বাংলাদেশের রিজার্ভ দাঁড়ায় ৪ হাজার ৫১০ কোটি ডলার।
 
এ পরিমাণ রিজার্ভ দিয়ে প্রায় ১২ মাসের আমদানি দায় পরিশোধ সম্ভব বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম।
 
এর আগে প্রথম রিজার্ভ ৪ হাজার ৪০০ কোটি (৪৪ বিলিয়ন) ডলার ছাড়ায় গত ২৪ ফেব্রুয়ারি। এরপর এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) আমদানি দায় পরিশোধের ফলে রিজার্ভ কিছুটা কমে গেলেও এপ্রিলের মাঝামাঝি থেকে তা আবার বাড়তে শুরু করে।
 
সিরাজুল ইসলাম দেশ রূপান্তরকে বলেন, করোনার মধ্যেও প্রবাসী আয় প্রবাহ ভালো রয়েছে। বাজারে ডলারের সরবরাহ বেশি। এ কারণে বাজার থেকে বেশ কিছু ডলারও কিনেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে রিজার্ভ বেড়েছে।
 
তবে মঙ্গলবার আকুর মার্চ-এপ্রিল সময়ের দেনা পরিশোধের কথা রয়েছে। এই দিন ১৭৪ কোটি ডলার আকুর দেনা পরিশোধ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ফলে রিজার্ভ আবার ৪৫ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে যাবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম। 
 
বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, ইরান, মিয়ানমার, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ বর্তমানে আকুর সদস্য। এ দেশগুলো থেকে বাংলাদেশ যেসব পণ্য আমদানি করে তার বিল দুই মাস পর পর আকুর মাধ্যমে পরিশোধ করতে হয়।
 
বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, ঈদকে কেন্দ্র করে বেশি করে রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছেন প্রবাসীরা। গত ১ ও ২ মে ১৫ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এসেছে দেশে। এছাড়া গত এপ্রিলের পুরো মাস জুড়ে ২০৬ কোটি ৭০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। এ অঙ্ক গত বছর এপ্রিলে আসা রেমিট্যান্সের চেয়ে ৮৯ দশমিক ১১ শতাংশ বেশি।
 
প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) দেশে ২ হাজার ৬৭ কোটি ২০ লাখ (২০.৬৭ বিলিয়ন) ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। এ অঙ্ক অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল সময়ে আসা রেমিট্যান্সের চেয়ে ৩৯ শতাংশ বেশি।
 
এ বিষয়ে পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর দেশ রূপান্তরকে বলেন, রিজার্ভ এখন বাড়বেই। কেননা, রেমিট্যান্স বাড়ছে। সেই তুলনায় আমদানি বাড়ছে না। ফলে দেশের মধ্যে প্রচুর ডলার থেকে যাচ্ছে, যা কেন্দ্রীয় ব্যাংক কিনে নিচ্ছে ডলারের দর স্থিতিশীল রাখতে। এতে কোনো অসুবিধা দেখি না। এই করোনার মধ্যে ভারতেও রিজার্ভ বেড়েছে।
 
এর আগে গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর রিজার্ভ ৪৩ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করে। ১৫ ডিসেম্বর ৪২ বিলিয়ন এবং ২৮ অক্টোবর ৪১ বিলিয়ন অতিক্রম করে।

সর্বশেষ সংবাদ

অর্থ ও বাণিজ্য এর আরো খবর