আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন ড. ইউনূস

শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে ঢাকার কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তর ফৌজদারি আইনে হওয়া মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান শান্তিতে নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ চারজন। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালত শুনানি শেষে তাদের জামিন মঞ্জুর করেন। ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের পেশকার জামাল উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জামিন পাওয়া অপর আসামিরা হলেন গ্রামীণ টেলিকমের এমডি আশরাফুল হাসান, প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক নূর জাহান বেগম ও শাহজাহান। এদিন সকাল ১১টার পর আদালতে হাজির হন ইউনূসসহ চার আসামি। এরপর আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে আদালতে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় প্রত্যেকের জামিন মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের শ্রম পরিদর্শক আরিফুজ্জামান ফৌজদারি আইনের ৩০৩ (ঙ) ও ৩০৭ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, ড. ইউনূসের গ্রামীণ টেলিকম পরিদর্শনে যান কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। সেখানে তাঁরা শ্রম আইনের কিছু লঙ্ঘন দেখতে পান। লঙ্ঘনসমূহের মধ্যে রয়েছে ১০১ জন শ্রমিক-কর্মচারীকে স্থায়ী করার কথা থাকলেও তাঁদের স্থায়ী করা হয়নি। শ্রমিকদের অংশগ্রহণের তহবিল ও কল্যাণ তহবিল গঠন করা হয়নি। এছাড়া কম্পানির লাভ্যাংশের ৫ শতাংশ শ্রমিককে দেওয়ার কথা থাকলেও তা তাদের দেওয়া হয়নি। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁদের বিরুদ্ধে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তর বাদী হয়ে এই মামলা করেন।

আইন আদালত এর আরো খবর