বাবা-মায়ের পাশে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন ব্যারিস্টার মওদুদ

নোয়াখালীর কৃতি সন্তান, বরেণ্য রাজনীতিবিদ ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের পঞ্চম জানাজা শেষে অজস্র মানুষের শ্রদ্ধায় বাবা-মায়ের পাশে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন।
 
শুক্রবার (১৯ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটে কোম্পানীগঞ্জের চর পার্বতী ইউনিয়নের মানিকপুর গ্রামের বাড়ির মসজিদের সামনে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হয়।
 
এর আগে, ঢাকায় দুটি জানাজা শেষে দুপুর ৩টা ১০মিনিটে হেলিকপ্টারে করে ব্যারিস্টার মওদুদের মরদেহ তার নির্বাচনী এলাকার কবিরহাট সরকারী কলেজ মাঠে আনা হয়। সেখানে তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর, ব্যরিস্টার মওদুদের নিজ উপজেলা নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট সরকারী মুজিব কলেজ মাঠে নেওয়া হয়। 
 
সেখানে তার চতুর্থ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নেন, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা ও মওদুদের ভায়রা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বসুরহাট পৌরসভার আলোচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্যাহ বুলু, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, সাবেক বিরোধী দলীয় চিপ হুইপ জয়নাল আবদিন ফারুক, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরী, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান রিপন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল হাই সেলিম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম সিকদার, বসুরহাট পৌরসভা বিএনপির সভাপতি আবদুল মতিন লিটনসহ দলীয় নেতাকর্মী ও দল-মত নির্বিশেষে সর্বস্তরের জনগণ।
 
এসময় মরহুমের জন্য দোয়া চান মরহুমের স্ত্রী সাবেক সংসদ সদস্য হাসনা জসিম উদ্দিন মওদুদ।
 
এরপর মওদুদের মরদেহ তার নিজ বাড়িতে নেওয়া হয়। এখানে পঞ্চম জানাজার নামাজ হয়। জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানের বাবা-মায়ের পাশে সমাহিত করা হয়।
 
ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নোয়াখালী-৫ আসন (কোম্পানীগঞ্জ-কবিরহাট) থেকে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।
 
 
বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ নেতা মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি স্ত্রী হাসনা জসিম উদ্দিন মওদুদ, মেয়ে আনা তাসপিয়া মওদুদ, দুই ভাই, দুই বোনসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন।

জন্ম ও মৃত্যু এর আরো খবর