ডুমুরিয়ায় ট্রাকের ধাক্কায় মাহেন্দ্র খাদে, নিহত বেড়ে ৭

খুলনার ডুমুরিয়ায় যাত্রীবাহী মাহেন্দ্রকে বালুবাহী ট্রাকের ধাক্কার ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাত জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় ট্রাকচালককে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পূর্ব জিলেরডাঙ্গা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, বালুবাহী একটি ট্রাক যাত্রীবাহী একটি মাহেন্দ্রকে ধাক্কা দেয়। এতে মাহেন্দ্রটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের ডোবায় পড়ে যায়। প্রায় ৪ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে ডোবার ভেতর থেকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এরপর ডুবন্ত মাহেন্দ্র থেকে আরও তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে দুজনের পরিচয় নাম-পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন মাহেন্দ্র চালক ডুমুরিয়ার শরাফপুরের জাকারিয়া সরদারের ছেলে ইলিয়াস সরদার (৪৫), রুদাঘরা গ্রামের মহিউদ্দিনের মেয়ে রেশমা খাতুন (৩২)। এছাড়া অন্য নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ওবায়দুর রহমান জানান, বালুভর্তি ট্রাক এবং যাত্রীবাহী মাহেন্দ্র খুলনার দিকে যাচ্ছিল। ট্রাকটি মাহেন্দ্রকে পেছনের থেকে ধাক্কা দেয়। এতে মাহেন্দ্রসহ ট্রাকটি মহাসড়কের পাশে ডোবায় পড়ে যায়। মাহেন্দ্রের ওপর বালুভর্তি ট্রাক উঠে পড়ায় সেটি পানির নিচে তলিয়ে যায়। মাহেন্দ্র থেকে কেউ বের হতে পারেনি। পরে ডুমুরিয়া ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা প্রায় চার ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে পানির ভেতর থেকে চারজন ও পরে আরও তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে। মাহেন্দ্রটি উদ্ধার করা হয়েছে। ওসি বলেন, ‘ট্রাকচালক রাকিব শেখকে আটক করা হয়েছে। তিনি খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার মহসীন শেখের ছেলে।’ এদিকে, দুর্ঘটনায় পর উদ্ধার কাজ চালানোর জন্য খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক প্রায় চার ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। এতে রাস্তার দুইপাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে। বিকেল ৫টার দিকে উদ্ধারকাজ শেষ হলে মহাসড়ক খুলে দেওয়া হয়।

দুর্ঘটনা এর আরো খবর