মাঝারী ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের প্রভাবে রাজধানীসহ দেশের বিভাগীয় শহরগুলোতে সৃষ্ট মেঘলা আকাশ থেকে ক্ষণে ক্ষণে বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টির সঙ্গে রয়েছে হালকা বাতাস। গত বুধবার থেকে রাজধানীতে শুরু হয়েছে ভারী বর্ষণ। আবার কখনো কখনো গুড়িগুড়ি বৃষ্টি। যা প্রভাব ফেলেছে নগরজীবনে। আজও  সকালে রাজধানীর কয়েক জায়গায় গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হয়েছে। আকাশ এখনো মেঘলা রয়েছে। আবহাওয়া বার্তা বলছে, চলমান অবস্থা সহসাই পরিবর্তন হচ্ছেনা। আগামী ২৪ ঘন্টায় রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। পশ্চিম ও মধ্য বঙ্গোপাসাগরে লঘুচাপের কারণে দেশের উত্তরাঞ্চলে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে। দিনে বৃষ্টি রাতে শীতের প্রকপ দেখা দিচ্ছে। এতে অনেকটা ঘরবন্দি অবস্থায় পড়েছে মানুষ। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, উপকূলীয় অন্ধ্র প্রদেশ-উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি বর্তমানে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় লঘুচাপ রুপে অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। ফলে রাজধানী ঢাকাসহ ময়মনসিংহ, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। একইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং অন্যত্র তা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে। গত চব্বিশ ঘন্টায় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের পরিমাণ রাজশাহীতে ১০৯ মিলিমিটার। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা টেকনাফে ৩২ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস আর সর্বনিম্ন ঢাকার পাশ্ববর্তী জেলা টাঙ্গাইলে ১৮.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় আজ বাতাসের গতিবেগ ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার। যা গতকালের থেকে বৃদ্ধি পেয়েছে। ঢাকায় আজ সূর্যাস্ত ৫টা ২৪ মিনিট। আর আগামীকালের সূর্যোদয় সন্ধ্যা ৬টা ১ মিনিট।