৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ ক্রিকেটার শাহাদাত

জাতীয় ক্রিকেট লিগের ম্যাচে সতীর্থ ক্রিকেটারের গায়ে হাত তোলার ঘটনায় পেসার শাহাদাত হোসেনকে পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এর মধ্যে অবশ্য দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা স্থগিত রাখা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি জাতীয় দলের হয়ে এক সময় খেলা এই ক্রিকেটারকে ৩ লাখ টাকা অর্থ জরিমানাও করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিসিবি’র পক্ষ থেকে শাহাদাতের শাস্তির ব্যাপারটি নিশ্চিত করা হয়। আগামী ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন শাহাদাত। গত রোববার খুলনায় শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ঢাকা বিভাগ ও খুলনা বিভাগের মধ্যকার শেষ রাউন্ডের ম্যাচের দ্বিতীয় দিন স্পিনার সতীর্থ আরাফাত সানি জুনিয়রের গায়ে হাত তোলেন ঢাকা বিভাগের হয়ে মাঠে নামা শাহাদাত। ম্যাচে বলের এক পিঠ ঘষে দেওয়ার জন্য আরাফাতকে বলেন শাহদাত। আরাফাত সেটা ঠিকঠাক করতে পারবেন না বলাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন লম্বাদেহী পেসার। এক পর্যায়ে অতিক্রম করেন সীমা। ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ শিপার জানিয়েছিলেন, শাহাদাত যা ঘটিয়েছে সেটা লেভেল ৪ এর আওতায়। এ শাস্তি অনেক কঠিন ও বড়। এটা তেড়ে যাওয়া, বাজে অঙ্গভঙ্গি বা গালি দেয়ার মতো ছোটখাটো ঘটনা নয়। সরাসরি গায়ে হাত তোলা। এর শাস্তি কঠিন। এর আগে নিজ বাসার শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের দায়ে জেলে যেতে হয়েছিল শাহাদাতকে। একই মামলায় জেলে ছিলেন তার স্ত্রীও। জামিনে জেল থেকে মুক্তির পর নিজের ভুল স্বীকার করে দেশ ও জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন শাহাদাত। তখন এই পেসারকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করেছিল বিসিবি। পরে তার আবেদনের প্রেক্ষিতে জীবিকার কথা ভেবে আবার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল ক্রিকেটে ফেরার।

খেলা এর আরো খবর