আদালতে তোলা হচ্ছে সাংবাদিক কাজলকে

নিখোঁজের ৫৩ দিন পর যশোরের বেনাপোল থেকে উদ্ধার হওয়া ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলকে আদালতে তোলা হচ্ছে। রবিবার দুপুরে তাকে যশোরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তোলা হচ্ছে বলে ঢাকাটাইমসকে জানিয়েছেন যশোর আদালতের পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান।
 
তিনি বলেন, কিছুক্ষণের মধ্যেই তাকে আদালতে আনা হবে। পরে তাকে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারকের সামনে হাজির করা হবে।
 
গতকাল শনিবার দিবাগত গভীর রাতে বেনাপোল স্থলবন্দরের শূন্যরেখা থেকে সাংবাদিক কাজলকে উদ্ধার করে বিজিবি। ভারত থেকে অনুপ্রবেশের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের মামলা করেছে বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীটি।
 
বেনাপোল বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, ভোর চারটার দিকে শফিকুল ইসলাম কাজলকে থানায় নিয়ে আসে বিজিবি। তার বিরুদ্ধে ভারত থেকে অবৈধভাবে দেশে আসার অভিযোগে বিজিবি একটি মামলা করেছে। মামলার পর সকালে আমরা তাকে আদালতে পাঠিয়েছি। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো রিমান্ডের আবেদন করা হয়নি।
 
যশোর ৪৯ বিজিবির একটি সূত্র জানায়, সাংবাদিক কাজল গতকাল রাতে বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ভারত থেকে দেশে ফিরছিলেন। রাত পৌনে একটার দিকে তিনি বেনাপোল আন্তর্জাতিক শূন্যরেখায় আসেন। এ সময় তাকে গ্রেপ্তার করে বিজিবি।
 
গত ১০ মার্চ সন্ধ্যায় ‘দৈনিক পক্ষকাল’র অফিস থেকে বের হন সাংবাদিক কাজল। এরপর থেকেই তিনি নিখোঁজ ছিলেন। এরপর থেকে তার কোনো সন্ধান না পেয়ে পরদিন ১১ মার্চ চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার স্ত্রী জুলিয়া ফেরদৌসি নয়ন। ১৩ মার্চ জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে কাজলকে সুস্থ অবস্থায় ফেরত পাওয়ার দাবি জানায় পরিবার।
 
১৮ মার্চ প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচির মাধ্যমে কাজলের সন্ধান চাওয়া হয়। পরে ১৮ মার্চ রাতে কাজলকে অপহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে চকবাজার থানায় মামলা করেন তার ছেলে মনোরম পলক। কাজল নিখোঁজ হওয়ার পর তার সন্ধানের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে কয়েকদফা কর্মসূচি পালন করেছেন সাংবাদিক সহকর্মী ও পরিবারের সদস্যরা।