টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত

টেকনাফে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়েছেন। তারা উভয়ে চিহ্নিত সন্ত্রাসী জকির গ্রুপের সক্রিয় সদস্য। বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন সমুদ্র সৈকত এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় র‍্যাবের তিন সদস্য আহত হন।

নিহতরা হচ্ছেন, লেদা এলাকার নুর আহমদের ছেলে নুর কামাল (৩৫) ওরফে সোনায়া ডাকাত ও কক্সবাজারের ওমখালী এলাকার আবদুস শুক্কুরের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৪) ওরফে ডিবি সাইফুল।

র‍্যাব-১৫ সিপিসি-১ টেকনাফ ক্যাম্পের ইনচার্জ লে. মির্জা শাহেদ মাহতাব জানান, টেকনাফের বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন সমুদ্র সৈকত এলাকায় কুখ্যাত রোহিঙ্গা ডাকাত জকির গ্রুপের সদস্যরা সংঘবদ্ধভাবে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিলো। এমন গোপন সংবাদ পেয়ে রাত সাড়ে ১২টার দিকে র‍্যাবের একটি দল ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে।

এ সময় অস্ত্রধারী ডাকাতরা র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদেরকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। বেশ কিছুক্ষণ গুলি বিনিময়ের পর ডাকাতরা পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় হাবিলদার খাইরুল, এ এস মাহি আবু কায়সার ও সার্জেন হুমায়ুন নামে র‍্যাবের তিন সদস্য আহত হয়। পরে ডাকাতদলের সদস্যরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ৬ রাউন্ড গুলি, একটি একনলা বন্দুক, ৫ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও নগদ চল্লিশ হাজার ৫০০ টাকাসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নুর কামাল ও মো. সাইফুলকে উদ্ধার করে। পরে তাদেরকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

র‍্যাব কর্মকর্তা জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

খুন ও সন্ত্রাস এর আরো খবর