আবরার হত্যার নতুন ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় নতুন একটি ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাতে ভিডিও ফুটেজটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করে শিক্ষার্থীরা।

ভিডিও ফুটেজটি শেরেবাংলা হলের সিসিটিভি ক্যামেরার ১৪ মিনিট ৪৩ সেকেন্ডের।

 

নতুন ভিডিওতে দেখা যায়, রোববার রাত ৮টা ১৩ মিনিটে (৬ অক্টোবর) আবরারকে ছাত্রলীগের একদল কর্মী ডেকে দোতলায় নিয়ে যান। এরপর রাত ১টা ১৪ মিনিটে তিনজন তাকে ধরাধরি করে একটি কক্ষে নিয়ে যান। তাদের পেছনে আরও দুইজনকে হেঁটে আসতে দেখা যায়। রাত আড়াইটার পর আবরারকে নিচতলায় নামানো হয়। সিঁড়িতে তাকে কিছুক্ষণ রেখে পরবর্তীতে চাদর মোড়ানো অবস্থায় একটি স্ট্রেচারে তোলা হয়। এরপর চিকিৎসক আসেন। রাত সাড়ে তিনটার দিকে হলের প্রভোস্ট ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র কল্যাণ পরিচালক সেখানে উপস্থিত হন। তারা স্ট্রেচারে রাখা আবরারের মরদেহ চাদর সরিয়ে দেখেন। তাদের সঙ্গে ছাত্রলীগের বুয়েট শাখার সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান রাসেলকে কথা বলতে দেখা যায়।

এর আগে সোমবার (৭ অক্টোবর) ক্যাম্পাসে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীরা ওই ভিডিওটি সংগ্রহ করেছিলেন। সেসময় তাদের ভাষ্য ছিল, মূল অপরাধীদের আড়াল করতে সিসিটিভি ফুটেজ গায়েব করে আংশিক ফুটেজ প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, সদ্য স্বাক্ষরিত ভারত-বাংলাদেশ চুক্তির সমালোচনা করে ফেসবুকে পোস্ট দেন ফাহাদ। এরপর গত রোববার রাত ৮টার দিকে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নেয়া হয় তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (সপ্তদশ ব্যাচ) শিক্ষার্থী আবরারকে। তার কয়েক ঘণ্টা আগেই তিনি কুষ্টিয়ার গ্রামের বাড়ি থেকে হলে ফিরেছিলেন। এরপর রাত ২টার দিকে হলের সিঁড়িতে আবরারের লাশ পাওয়া যায়। এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত অভিযোগে সোমবারই বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ সংগঠনটির ১৩ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

খুন ও সন্ত্রাস এর আরো খবর