কক্সবাজারে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা

সেলফি তোলাকে কেন্দ্র করে কক্সবাজারে এক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।   কক্সবাজার সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানিয়েছেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা হত্যার ঘটনায় খুরুশকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।   জানা গেছে, সোমবার বিকেলে কক্সবাজার সদরের খুরুশকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিনের ফুপাতো ভাই মো. শফিক মোটরসাইকেলে করে তেতেইয়া এলাকা দিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় স্থানীয় জালাল উদ্দিন বন্ধুদের নিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে সেলফি তুলছিলেন। জালালের তোলা সেলফিতে মোটরসাইকেল আরোহী শফিকের স্বস্ত্রীক ছবি উঠে যায়। এ নিয়ে শফিক ও জালালের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষ মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে।  কক্সবাজার সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী তামজিদ পাশা জানান, খবর পেয়ে শফিকের মামাতো ভাই খুরুশকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লোকজন নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। চেয়ারম্যানের লোকজন ঘটনাস্থলে সেলফি তোলা জালালের ভাই খুরুশকূল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি আবছার কামালকে পেটাতে থাকে। একপর্যায়ে তারা আবছার কামালকে রাস্তার উপর কয়েক দফা আছাড় মারলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে চেয়ারম্যান ও তার লোকজন পালিয়ে যায়।   স্বজনরা আবছার কামালকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান কক্সবাজার সদর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি তামজিদ পাশা।

খুন ও সন্ত্রাস এর আরো খবর