প্রায় চল্লিশ দিন একটি অন্ধকার ঘরে বন্দি ছিলাম: সিজার
খবরের অন্তরালে প্রতিবেদক :

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মুবাশ্বার হাসান সিজার নিখোঁজের একমাস ১৪ দিন পর ফিরে এসে একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে রুদ্ধশ্বাস এ ঘটনার বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, কে বা কারা আমাকে অজ্ঞান করে নিয়ে যায়। প্রায় চুয়ল্লিশ দিন অন্ধকার ঘরে আমাকে আটকে রাখে। চল্লিশদিন পর আলোর মুখ দেখলাম। গতকাল রাতে হাত বাধা অবস্থায় আমাকে এয়ারপোর্ট রোডে ফেলে রেখে যায়। আমাকে রাস্তায় ফেলে দিয়ে বলে, পেছনে তাকাবি না। তাকালে মেরে ফেলবো। আমি একটা সিএনজি নিয়ে বাড়ির যাই। রাস্তায় থাকতে সিএনজিওয়ালার মোবাইল দিয়ে বাবাকে ফোন দেই। বাবা সিএনজি ভাড়া দিয়ে দেয়। কয়েকদিন আগে ফিরে আসা সাংবাদিক উৎপলের মতো তার কাছেও অপহরণকারীরা পত্যক্ষভাবে যোগাযোগ করে টাকা চাইতো বলে তিনি জানান। সিজারের বাবা মোতাহের হোসেন সিজারের ফিরে আসার কথা জানিয়ে  বলেন, সিজার বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে দক্ষিণ বনশ্রীর বাসায় ফিরেন। তবে কে বা কারা সিজারকে বাড়ি পৌছে দিয়েছে এ ব্যাপারে তিনি কিছু বলতে পারেন নি। মোতাহের হোসেন জানিয়েছেন, সাংবাদিক উৎপল দাস যেভাবে ফিরে এসছেন ঠিক একইভাবে সিজার ফিরেছেন। খিলগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সিজার রাতে বাসায় ফিরেছেন বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের জানানো হয়েছে। তবে তিনি এতদিন কোথায় ছিলেন এ বিষয়ে কিছুই জানা যায়নি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সিজারের বোন তামান্না লিখেছেন আল্লাহতা’লার অশেষ রহমতে গতকাল দিবাগত রাত ১টায় আমার ভাইয়া সুস্থ অবস্থায় বাসায় ফিরেছে! গত ৮ নভেম্বর রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বেগম রোকেয়া সরনি থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মুবাশ্বার হাসান সিজার। সিজার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে স্নাতক করার পর যুক্তরাজ্যে মাস্টার্স ও অস্ট্রেলিয়ায় পিএইচডি করেন। একসময় সাংবাদিকতাও করেছেন তিনি। আলোচনা ডটকম নামে একটি সাময়িকীর সম্পাদক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সিজার বাংলাদেশের কয়েকটি সংবাদমাধ্যম ও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমেও সাংবাদিকতা করেছেন। এদিকে সিজারের বাড়ি ফেরার আগে ‘নিখোঁজ’ হওয়ার দুই মাস ১০ দিন পর অনলাইন সংবাদমাধ্যম পূর্বপশ্চিম নিউজের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক উৎপল দাসের খোঁজও মিলেছে। মঙ্গলবার ( ১৯ ডিসেম্বর) রাতে অপহরণকারীরা নারায়ণগঞ্জের ভুলতায় শাহজালাল সিএনজি ফিলিং স্টেশনের সামনে উৎপল দাসকে রেখে যায়। পুলিশ তাকে ফাঁড়িতে নিয়ে আসে। পরে তার পরিবারের লোকজন গিয়ে পুলিশের সহযোগিতায় বুধবার ভোরে তাকে নিজ বাড়ি রায়পুরায় নিয়ে আসেন।

খুন ও সন্ত্রাস এর আরো খবর