ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করতে স্ক্রাব
খবরের অন্তরালে প্রতিবেদক :

জন্মদিন, বিয়ের অনুষ্ঠানসহ অন্য যে কোন অনুষ্ঠানে একটু সাজগোজ করেই যেতে হয়। অনেকেই আছেন যারা তৈলাক্ত ত্বকের কারণে সাজগোজ করতে গিয়ে বিপদে পড়েন। অনেক সময় সাজলেও তা একটু পরেই নষ্ট হয়ে যায়। তখন দেখতেও অনেক খারাপ লাগে। আসলে তৈলাক্ত ত্বকে খুব সহজে ধুলোবালি আটকে যায় এবং অতিরিক্ত তেল মুখের পোরগুলোকে বন্ধ করে দেয়। এতে করে সাজ নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ হয়ে ব্রণ হওয়ারও প্রকোপ বাড়ে। কাজেই সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে তৈলাক্ত ত্বকে স্ক্রাবিং করা খুবই জরুরি। তা না হলে ত্বক কালচে ও মলিন মনে হয়।

অনেকেই ত্বকের স্ক্রাবিং করতে বাজারের বিভিন্ন কসমেটিকস পণ্য ব্যবহার করেন। এতে ত্বকের নানা ক্ষতি হতে পারে। তাই ক্ষতি এড়াতে সপ্তাহে অন্তত একদিন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে ত্বকে স্ক্রাবিং করতে পারেন।

এক্ষেত্রে ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করতে ঘরোয়া উপায়ে তৈরি কিছু কার্যকর স্ক্রাবের কথা জেনে নিন-

গ্রিন টি স্ক্রাব
গ্রিন টি পানের পর টিব্যাগটি কখনই ফেলে দিবেন না। এর পরিবর্তে ব্যাগটি কেটে চাপাতা বের করে একটি বাটিতে নিন। এবার এর সঙ্গে ক্লিনজার কিংবা মধু ভালোভাবে মিশিয়ে তৈরি স্ক্রাবটি মুখে লাগান। কিছুক্ষণ পর পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকের তৈলাক্ততা দূর হওয়ার পাশাপাশি ব্রণও প্রতিরোধ হবে।

দারুচিনির স্ক্রাব
দারুচিনিতে অ্যান্টি-ফ্লামেটরি বৈশিষ্ট্য থাকায় তা তৈলাক্ত ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। এজন্য প্রথমে দারুচিনির গুঁড়োর সঙ্গে মধু মিশিয়ে তৈরি স্ক্রাবটি মুখে লাগান। কিছুক্ষণ পর পরিষ্কার পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এটি তৈলাক্ত ত্বকের নানা সংক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।

বেকিং সোডার স্ক্রাব
তৈলাক্ত ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করতে বেকিং সোডা স্ক্রাবের জুরি মেলা ভার। এজন্য বেকিং সোডার সঙ্গে পানি ও সামান্য চিনি মিশিয়ে তৈরি স্ক্রাব হালকাভাবে মুখে ম্যাসাজ করুন। অল্প কিছুক্ষণ পর পানি দিয়ে ভালোভাবে মখে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত করলে ভালো উপকার পাবেন।

শসার স্ক্রাব
ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করে শসা। ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করতে শসা ভালো করে ব্লেন্ড করে মুখে লাগাতে পারেন। চাইলে পাতলা করে কেটে মুখে আস্তে আস্তে ঘষতে পারেন। এভাবে কিছুক্ষণ করে পরিস্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। উপকার পাবেন।

মধুর স্ক্রাব
প্রাকৃতিক উপাদানগুলোর মধ্যে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য সবচেয়ে কার্যকারী হলো মধু। চাইলে ত্বকে আলাদাভাবে মধু ব্যবহার করতে পারেন। আবার মধুর সঙ্গে সামান্য চিনি মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করেও মুখে লাগাতে পারেন। স্ক্রাবটি নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের মরা কোষ দূর হয়। একইসঙ্গে ত্বক হয়ে উঠে আরও নরম এবং মসৃণ।

ওটমিলের স্ক্রাব
ত্বকের অতিরিক্ত তেল করতে করতে ব্যবহার করতে ব্যবহার করতে পারেন ওটমিলের স্ক্রাব। প্রথমে ওটমিল পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। পরে নরম হয়ে গেলে পুরো মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত একদিন ওটমিল দিয়ে মুখে স্ক্রাবিং করলে ভালো ফল পাবেন।

লবণ এবং লেবুর স্ক্রাব
ঘরোয়া উপায়ে তৈরি লবণ এবং লেবুর স্ক্রাবটিও তৈলাক্ত ত্বকের জন্য উপকারী। এজন্য এক টেবিল চামচ লবণের সঙ্গে পরিমাণমতো লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এবার তা মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত করলে পরিবর্তনটা নিজেই টের পাবেন। লেবুর রস ত্বকের কালো দাগ দূর করে এবং লবণ ত্বকের তৈলাক্ততা কমিয়ে আনতে সাহায্য করে।