জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে প্রণব মুখার্জি

ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। মস্তিস্কে রক্তজমাটের পাশাপাশি করোনাভাইরাসেও আক্রান্ত হয়েছেন বর্ষীয়ান সাবেক এ রাষ্ট্রপ্রধান। খবর এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।
 
সাবেক এই কংগ্রেস নেতাকে দিল্লির একটি সামরিক হাসপাতালে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রাখা হয়েছে।
 
সোমবার নয়াদিল্লির আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল হাসপাতালে প্রণব মুখার্জির মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করা হয়। এনডিটিভি বলছে, সফলভাবে সেই অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। আঘাতের কারণে তার মস্তিষ্কে রক্তজমাট বেঁধেছিল। অস্ত্রোপচারে তা অপসারণ করা হয়। এর পর তার শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে। তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়া হয়েছে।
 
৮৪ বছর বয়স্ক প্রণব কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত। সোমবার সকালে এক টুইটে নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেন। গত এক সপ্তাহে কেউ তার সংস্পর্শে এলে তাকে সেলফ আইসোলেশনে থাকতে ও করোনা টেস্ট করাতে পরামর্শ দিয়েছেন ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করা প্রণব।
 
‘হাসপাতালে করোনার নমুনা পরীক্ষার পর আজ (সোমবার) আমার পজিটিভ রেজাল্ট এসেছে। গত এক সপ্তাহে যারা আমার কাছাকাছি এসেছিলেন, আমি তাদের আইসোলেশনে থাকার অনুরোধ করব। সেই সঙ্গে করোনা টেস্ট করিয়ে নেয়ার অনুরোধ করব’-যোগ করেন প্রণব।
 
তার এই টুইটের পর পরই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল লেখেন– সাবধানে থাকবেন স্যার। আমরা আপনার দ্রুত আরোগ্য ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি।
 
দিল্লি কংগ্রেসের সাবেক প্রধান অজয় মাকেন টুইট করেন, ‘স্যার, আপনার দ্রুত আরোগ্য এবং দীর্ঘ ও সুস্থ জীবন কামনা করছি।’
 
ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়াল বলেন, ‘আপনার সুস্থতা ও দ্রুত আরোগ্য কামনা করি।’
 
আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়েছে, আগের দিন রাতে টয়লেটে পড়ে গিয়েছিলেন প্রণব মুখার্জি। তার মাথায় আঘাত লেগেছিল। মাথা ফাটেনি, কিন্তু স্নায়ুর কিছু সমস্যা দেখা দেয়ায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরীক্ষা করে দেখা যায়, তার মাথায় রক্তজমাট বেঁধে আছে। জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্রোপচার করা দরকার। তার জন্য প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে গিয়েই ধরা পড়ে, তার কোভিডও হয়েছে। এ দিনই অস্ত্রোপচার করা হয় প্রণবের। তাকে ভেন্টিলেশনে দিয়ে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকরা।
 
এদিকে প্রণব মুখার্জির অসুস্থতার খবর আসার পর থেকেই ভারতের রাজনীতিবিদরা তার আরোগ্য কামনা করে বার্তা দিতে থাকেন। ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং সরাসরি হাসপাতালে যান। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ প্রণবের মেয়ে শর্মিষ্ঠাকে ফোন করে খোঁজ নেন। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী প্রণব মুখার্জির দ্রুত আরোগ্য কামনা করে টুইট করেন।
 
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করে জানান, সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় করোনা-আক্রান্ত হওয়ায় তিনি উদ্বিগ্ন। তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন মমতা।
 
জানা গেছে, গত কয়েক মাস বাড়ি থেকে কার্যত বাইরে যাননি প্রণব মুখার্জি। খুব কম মানুষের সঙ্গেই দেখা করতেন। দূরে একটি চেয়ার রেখে আগন্তুকদের সঙ্গে কথা বলতেন। ঘনিষ্ঠদের সঙ্গে আলাপচারিতায় প্রণব জানিয়েছিলেন যে, তিনি সম্প্রতি প্রত্যেক দিন তার ডায়েরিতে কোভিড সংক্রান্ত খবরাখবর লিখে রাখছেন এবং গোটা বিশ্বে কী হচ্ছে না হচ্ছে, তার দিকে নজর রাখছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর