‘বন্ধু’ ট্রাম্পের সঙ্গে মোদির ২৫ মিনিটের ফোনালাপ

জি৭-এ ভারতের অন্তর্ভুক্তি, চীন-ভারত সীমান্তে মধ্যে সাম্প্রতিক উত্তেজনা, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অগ্রগতি, বিক্ষোভসহ সাম্প্রতিক নানা ইস্যু নিয়ে টেলিফোনে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল মঙ্গলবার এ দুই নেতার মধ্যে প্রায় ২৫ মিনিট কথা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।
 
বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে নিজেই জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি লিখেছেন, ‘বন্ধু ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হলো। জি-৭ নিয়ে তার পরিকল্পনার ব্যাপারে কথা হয়েছে। এছাড়াও কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ও আরও অনেক বিষয়ে কথা হয়েছে।’
 
মোদি আরও লিখেছেন, ‘ভারত-মার্কিন পরামর্শের গভীরতা করোনা পরবর্তী দুনিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ হয়ে থাকবে।’
 
ভারত সরকারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ট্রাম্প ও মোদি দুই দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে টেলিফোনে কথা বলেছেন। তাদের আলাপচারিতায় ভারত-চীন সীমান্ত সংকট, যুক্তরাষ্ট্রে জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের জেরে বিক্ষোভ, করোনা মহামারি, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পুনর্গঠনের মতো বিষয়গুলো উঠে এসেছে।
 
উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিজেই ভারত-চীনের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসনে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এমনকি এ নিয়ে মোদির সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে বলেও দাবি করেছিলেন তিনি। তবে, সেসময় তার ফোনালাপের দাবি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে জানিয়েছে ভারত সরকার। সবশেষ ৪ এপ্রিল তাদের মধ্যে কথা হয়েছিল বলে জানিয়েছিল নয়াদিল্লি। পাশাপাশি, ট্রাম্পের মধ্যস্থতার প্রস্তাবও ফিরিয়ে দিয়েছে তারা।
 
চীনও জানিয়েছে, দুই দেশের মধ্যে সংকট সমাধানে তৃতীয় পক্ষের প্রয়োজন নেই। এর মধ্যেই মঙ্গলবার মোদির কাছে ফোন করেন ট্রাম্প।
 
এছাড়া জি-৭ ক্লাবে ভারতকে অন্তর্ভুক্ত করতে চান ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, ভারত, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়াকে এই গ্রুপে অন্তর্ভুক্তি করতে চান তিনি। তবে স্থায়ীভাবে তা করা হবে কিনা তা স্পষ্ট নয়। বর্তমানে জি-৭ ক্লাবে রয়েছে আমেরিকা, ব্রিটেন, জার্মানি, ফ্রান্স, ইটালি, কানাডা ও জাপান।
 
ফোনালাপে নরেন্দ্র মোদি যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ নিয়ে উদ্বেগ এবং দ্রুত এ সংকট সমাধানের আশাপ্রকাশ করেছেন।

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর