সহিংস বিক্ষোভ দমাতে যুক্তরাষ্ট্রে সেনা মোতায়েন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে চলমান বিক্ষোভ দমাতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। সেই সাথে ওয়াশিংটন ও নিউ ইয়র্ক শহরসহ ২৬টি অঙ্গরাজ্যে জারি করা হয়েছে কারফিউ। দাঙ্গা দমনে সকল ধরনের প্রস্তুতি নিয়েই সেনাসদস্যরা মাঠে নেমেছে বলে দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।
 
ইতোমধ্যে বিক্ষোভকারীদের দমাতে ৭শ' সেনাসদস্য মাঠে নেমেছেন। আরো ১৪শ’ সেনাসদস্যকে যে-কোনো মুহূর্তে মাঠ নামানোর জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। বিক্ষোভ দমনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সেনাবাহিনী নামানোর হুঁশিয়ারি দেয়ার একদিনের মাথায়ই ৩ জুন, বুধবার থেকে তাদের মাঠে দেখা গেলো।
 
এদিকে নিউইয়র্কের আকাশে সামরিক হেলিকপ্টার দিয়ে টহল দেয়া হচ্ছে বলে সংবাদে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো। দেশটির ২৬টি অঙ্গরাজ্যে জারি করা কারফিউ আরো কঠোর করেছে প্রশাসন। নতুন করে নিউ ইয়র্ক ও ওয়াশিংটন শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। তবে কারফিউ অমান্য করেই দেশজুড়ে অষ্টম দিনের মতো বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন বিক্ষুব্ধ জনতা।
 
গত ২৬ মে, সোমবার দেশটির মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনেয়াপোলিসে পুলিশের হাতে আটক হন জর্জ ফ্লয়েড নামের ওই ব্যক্তি। এসময় একজন শ্বেতাঙ্গ পুলিশ সদস্য তার গলায় হাঁটু চেপে ধরলে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যান ৪৬ বছর বয়সী আফ্রিকান-আমেরিকান নাগরিক ফ্লয়েড।
 
এ ঘটনার জেরে সারা দেশে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। দেশটির বিভিন্ন শহরে সহিংস বিক্ষোভ চলছে। জর্জ ফ্লয়েডের নিজ শহর হিউস্টনে হাজারো জনতার বিক্ষোভে যোগ দিয়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা। ফ্লয়েডের স্বজনেরা নির্মম এ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

আন্তর্জাতিক এর আরো খবর