জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৭শতাংশ : এডিবি

চলতি অর্থবছর শেষে মোট দেশজ উৎপাদনের বা জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৭ শতাংশ। আর মূল্যস্ফীতি হতে পারে ৬ দশমিক ১ শতাংশ। এমন পূর্বাভাস দিয়েছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। ম্যানিলা ভিত্তিক সংস্থাটির হিসেবে, আগামী বছর এ হার হতে পারে ৭ দশমিক ২ শতাংশ।

বুধবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এডিবির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য তুলে ধরেন সংস্থার অর্থনীতিবিদ সুন চ্যান হং।

সংস্থাটি বলছে, অর্থনৈতিক অগ্রতির ক্ষেত্রে সঠিক পথেই এগুচ্ছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ একমাত্র দেশ যা মানবসম্পদ উন্নয়ন, মাথাপিছু আয় ও প্রবৃদ্ধিতে ভালো করেছে। পরপর তিন বছর ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি এটারই প্রমাণ। গত তিন বছরে প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশের উপরে- এটা কম অর্জন নয়। ২০১৬ সালে ৭ দশমিক ১, ২০১৭ সালে ৭ দশমিক ৩ এবং ২০১৮ সালের শেষে ৭ শতাংশ অর্জন অনেক ভালো বলে জানাচ্ছে সংস্থাটি।

সুন চ্যান হং বলেন, রফতানি খাতকে আরও বেগবান করতে কেবল পোশাক শিল্পের ওপর নির্ভর না করে অন্যান্য পণ্যের দিকেও নজর দেওয়ার পাশাপাশি নতুন নতুন বাজার সন্ধান করতে হবে।

প্রসঙ্গত, জিডিপির প্রবৃদ্ধি নিয়ে সরকার, বিশ্বব্যাংক ও এডিবি তিন রকম হিসাব দিয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, চলতি অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি ৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ হবে। আর বিশ্বব্যাংক বলছে, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়লেও দারিদ্র্য বিমোচন কিংবা অর্থনৈতিক বৈষ্যমের প্রশ্নে এখনও পিছিয়ে বাংলাদেশ। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছর শেষে দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি হবে ৬ দশমিক ৫ শতাংশ।

সর্বশেষ সংবাদ

অর্থ ও বাণিজ্য এর আরো খবর