রাজ দায়িত্ব ছেড়ে সাধারণ বেশে মেগান

ব্রিটিশ রাজ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব ছাড়ার পর কানাডায় আগের মতো সাধারণ জীবনযাপন শুরু করেছেন প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী মেগান মার্কেল। গতকাল সোমবার লেগিংস ও প্লেড বুট পরে ছেলে আর্চিকে সঙ্গে নিয়ে ভিক্টোরিয়ার একটি পার্কে হাঁটতে বের হন তিনি। ছেলেকে যে ক্যারিয়ারটিতে নিয়েছেন সেটি মাত্র ১৮০ ডলার মূল্যের বলে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল এর খবরে বলা হয়।
 
কিছুটা কুয়াশাচ্ছন্ন বাদলা আবহাওয়ার মধ্যেই ছেলে আর্চি ও দুটি পোষা কুকুর নিয়ে ভিক্টোরিয়ার হর্থ হিল পার্কে বেড়াতে যান সদ্য রাজকীয় দায়িত্ব ছেড়ে আসা ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল। এ সময় তার পরনে ছিল ৯৮ ডলার মূল্যের লুলুলেমন ব্রান্ডের ‘অ্যালেঞ্জ’ লেগিংস, একটি ফর্ম-ফিটিং নেভি স্যুট এবং একটি বিয়ানি টুপি।
 
আর ছেলে আর্চিকে পরানো হয়েছিল ‘এইচ অ্যান্ড এম’ ব্র্যান্ডের ২৫ ডলার মূল্যের কটনের জামা। মেগানের পায়ে ছিল কানাডিয়ান ব্র্যান্ড কামিকের ১৬০ ডলার মূল্যের ‘সিয়েনা’ বুট যা তিনি প্রিন্স হ্যারিকে বিয়ে করার আগে প্রায়শই পরতেন। ২০১৬ সাল থেকেই এই প্লেড বুট পরে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতে দেখা গেছে মেগানকে।
 
পছন্দের লেগিংস বা স্কিনি জিন্সের সঙ্গে এই বুট পরে যোগ ব্যায়ামে, স্যুটসের সেটে এবং কুকুরদের নিয়ে হাঁটতে যেতেন প্রাক্তন এই অভিনেত্রী। গতকাল আগের সেই পোশাকে বেশ হাস্যোজ্জ্বল লাগছিল মেগানকে।এদিকে, গতকাল সোমবার লন্ডনে অনুষ্ঠিত যুক্তরাজ্য-আফ্রিকা বিনিয়োগ সম্মেলনে যোগদান শেষে প্রিন্স হ্যারি কানাডার ভ্যানকুভারে যান। লন্ডনের সম্মেলনটি রাজপরিবারের প্রতিনিধি হিসেবে তার শেষ আনুষ্ঠানিক রাজকীয় দায়িত্ব বলে মনে করা হচ্ছে। তার এই চলে যাওয়াকে ‘প্রতীকী প্রস্থান’ বলা হচ্ছে। বাকিংহাম প্রাসাদ হ্যারি-মেগানের রাজকীয় উপাধি সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণার দুদিন পর প্রিন্স হ্যারি যুক্তরাজ্য ছেড়ে কানাডায় চলে গেলেন।
 
হ্যারি-মেগান দম্পতি ৮ জানুয়ারি আকস্মিক এক ঘোষণায় রাজকীয় দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে স্বনির্ভর জীবনযাপনে যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি কানাডায় বসবাসের কথা জানান। তাদের ওই ঘোষণায় ব্রিটিশ রাজপরিবারে তোলপাড় শুরু হয়। তাদের ওই সিদ্ধান্ত থেকে ফেরাতে ১৩ জানুয়ারি ইংল্যান্ডের নরফক কাউন্টির স্যান্ড্রিংহ্যাম প্রাসাদে হ্যারির সঙ্গে বৈঠক করেন রানি এলিজাবেথ ও তার উত্তরাধিকারীরা। বৈঠকে রানি হ্যারি ও মেগানের নতুন সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তার ‘পূর্ণ সমর্থন’ থাকার কথা জানান।