বৈশাখি আড্ডায় প্রসেনজিত-ঋতুপর্ণা

তারা আসবেন তাই সাজ সাজ রব। কলকাতার এক হোটেলে বৈশাখ উদযাপন করছেন প্রসেনজিত ও ঋতুপর্ণা ঘোষ। তাদের আগমন উপলক্ষে চেয়ার সাজিয়ে রাখা হয়েছে। একটু পরেই তারা এসে বসবেন। তারা এলেন, বললেন এবং জয় করলেন।

বাংলার নতুন বছর মানেই প্রসেনজিত্ এবং ঋতুপর্ণার কাছে উপহার পাওয়ার মওসুম। প্রসেনজিতের কথায়, ‘‘নতুন বছরে উপহার মাস্ট। তবে এখন আমার দেওয়ার ভাগ বেশি। যারা আমার সঙ্গে সারা বছর কাজ করেন, তাদের খুব সামান্য হলেও এ সময়টা কিছু দেওয়ার চেষ্টা করি।’’

এখন বাঙালিয়ানা কি শুধু পহেলা বৈশাখ কেন্দ্রীক? না! এ কথা একেবারেই মানতে চাইলেন না তারা। ঋতুপর্ণা শেয়ার করলেন তার ছেলের গল্প। তিনি বললেন, ‘‘আমার ছেলের সদ্য পৈতে হয়েছে। ও বেশ কয়েক বছর সিঙ্গাপুরে থেকে পড়াশোনা করছে। আমরা কিন্তু ওকে কোনও নিয়ম পালন করতে জোর করিনি। ও নিজের আগ্রহেই করেছে। ফলে এখনকার প্রজন্মও বাঙালিয়ানাটা বজায় রাখতে চায়।’’

ঠিক এই জায়গা থেকেই কথার সূত্র ধরলেন প্রসেনজিত্। তিনি মনে করেন, ‘‘এটাই আজকের প্রজন্ম। এ যুগের বাঙালি। আমরা কোনও কিছু করতাম বাবা-মা করতে বলেছে বলে। আর ওরাও করে। তবে সব কিছুর পিছনের কারণটা স্পষ্ট করে জেনে নেয়।’’