শ্রাবন্তীর দ্বিতীয় সংসারও ভেঙেছে
খবরের অন্তরালে প্রতিবেদক :

দ্বিতীয় সংসারও ভেঙেছে টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের। তবে ঠিক কবে এবং কি কারণে তাঁর ছাড়াছাড়ি হয় তা জানা যায়নি এখনও। বর্তমানে একমাত্র ছেলেকে নিয়ে সিঙ্গেল মাদারের জীবনযাপন করছেন ‘শিকারি’ সিনেমার এ প্রিয়দর্শিনী।

সম্প্রতি গণমাধ্যমে শ্রাবন্তী নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন, স্বামী কৃষাণের সঙ্গেও ডিভোর্স হয়ে গেছে তার।

জানা গেছে, মুক্তি পেতে যাচ্ছে শ্রাবন্তীর নতুন ছবি ‘জিও পাগলা’। রবি কিনাগির পরিচালনায় এই ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন সোহম, হিরন, পায়েল সরকার, ঋত্বিকা সেন, বনি, কৌশানী। প্রায় এক বছর পর রুপালি পর্দায় ফিরছেন কলকাতার তুমুল জনপ্রিয় এই নায়িকা। মজার ব্যাপার হলো এই ছবিতে শ্রাবন্তীর বিপরীতে আছেন তার কিশোরবেলার প্রিয় নায়ক যিশু সেনগুপ্ত। দুজনের রসায়নটা নাকি বেশ দারুণ জমেছে অফ এবং অন- দুই স্ক্রিনেই। কানাঘুষাও হচ্ছে টালিগঞ্জের সব্খানে, প্রেমে পড়েছেন এই দুই তারকা।

সেই কানাঘুষার হাত ধরেই বিভিন্ন গণমাধ্যমে ডিভোর্স নিয়ে মুখ খুলেছেন শ্রাবন্তী। গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শ্রাবন্তী বলেন, ‘দু’জনে মিলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিচ্ছেদের। বনিবনা না হলে একসঙ্গে মিথ্যে সুখে থাকার কী লাভ। আমার কোনো অভিযোগ নেই আমার প্রাক্তনের বিরুদ্ধে। আমি চাই, আমার সঙ্গে না হোক , কিন্তু সে যেন ভালো থাকে।’

শ্রাবন্তী আরও বলেন, ‘আমি এখন ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মাথাই ঘামাচ্ছি না। কাজ  আর ছেলের পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত। ঝিনুক এবার ক্লাস এইটে। ওর স্কুল যেতে সুবিধে হবে বলে বেহালা থেকে বাইপাসের ধারে বহুতল ভবনে বাসা নিয়েছি। বেশ ভালো আছি মা-ছেলে।’

উল্লেখ্য, শ্রাবন্তীর জীবনে অবশ্য কৃষাণ প্রথম পুরুষ নন। তিনি নিজেই জানিয়েছেন, এর আগে তাঁর দুটি সম্পর্ক ছিল, যার মধ্যে পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে বিষয়টা বিয়ে পর্যন্ত গড়িয়েছিল। এই পক্ষে ঝিনুক নামে একটি ছেলেসন্তানও আছে শ্রাবন্তীর। কিন্তু শেষ পর্যন্ত টেকেনি সেই সংসার। পাশাপাশি শোনা যায়, নায়িকা হবার আগেই বিবাহিত ছিলেন শ্রাবন্তী। সৌরভ চক্রবর্তী নামের এক যুবককে ভালোবেসেই পারিবারিকভাবে বিয়ে করেছিলেন এই অভিনেত্রী।

চলচ্চিত্রে এসে নাম লেখানোর পর নানা কারণ আর মতবিরোধে ভেঙ্গে যায় সেই সংসার। কিন্তু সেই বিয়ের কথা স্বীকার করেন না শ্রাবন্তী নিজে, আর টালিগঞ্জের কোথাও তার প্রমাণও পায়নি কেউ। তাই রাজীব চক্রবর্তীই এই নায়িকার প্রথম স্বামী হিসেবে পরিচিত।