সেপ্টেম্বরে স্কুল খুললে ডিসেম্বরে পিইসি পরীক্ষা : প্রতিমন্ত্রী

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর করাণে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল শিক্ষকা প্রতিষ্ঠান। এমতাবস্তায় আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে স্কুল খুলতে পারলে ডিসেম্বরের মধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা (পিইসি) শেষ করা যাবে বলে আশা করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।
 
২৭ জুলাই, সোমবার ‘করোনাকালে প্রাথমিক শিক্ষায় চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণে করণীয়’ শীর্ষক এক সেমিনারে এই আশা প্রকাশ করেন প্রতিমন্ত্রী। শিক্ষা সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ইরাব) এই সেমিনারের আয়োজন করে।
 
এ সময় জাকির হোসেন বলেন, ‘যদি সেপ্টেম্বরে স্কুল খোলা সম্ভব না হয়, তাহলে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাবর্ষ উন্নীত করা হবে। উভয় পরিকল্পনার জন্যই সংশোধিত সিলেবাস তৈরির কাজ করছে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।’
 
তিনি আরো বলেন, ‘পিইসি পরীক্ষা বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত আমাদের নেই। এই পরীক্ষা আরো যুগোপযোগী করার জন্য প্রাথমিক শিক্ষা বোর্ড গঠনের কাজ চলছে। যদি সেপ্টেম্বরে স্কুল খোলে, তাহলে আমাদের এক ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। আর এই সময়ে স্কুল খোলা সম্ভব না হলে ভিন্ন পরিকল্পনা নেয়া হবে। এজন্য সংশোধিত সিলেবাস তৈরি করা হচ্ছে। পরবর্তী ক্লাসের জন্য গুরুত্বপূর্ণ পাঠ চিন্তা করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি করা হচ্ছে।’
 
প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, দেশে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে তিন কোটি ১০ লাখের বেশি শিক্ষার্থী রয়েছে। এর মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ের দেড় কোটি এবং প্রাথমিক ও প্রাক প্রাথমিক স্তরে এক কোটি ৬০ লাখের বেশি শিক্ষার্থী রয়েছে। এসব শিক্ষার্থীর জীবনে যাতে কোনো প্রকার বিরতি না আসে, সে লক্ষ্যেই বছরান্তে বার্ষিক পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা করা হচ্ছে। একইসঙ্গে করোনাকালে স্কুলপর্যায় থেকে কোনো শিক্ষার্থী যাতে ঝরে না পড়ে সেই জন্যও বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
 
সেমিনারের সভাপতিত্ব করেন ইরাব’র সভাপতি মুসতাক আহমদ আর সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক নিজামুল হক।
 
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে. চৌধুরী এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ।

শিক্ষা এর আরো খবর