৭ কলেজের অধিভুক্তি বাতিল হলে ঢাকা অচলের ঘোষণা

সাত কলেজ নিয়ে কোনো অবৈজ্ঞানিক সিদ্ধান্ত নিলে রাজধানী ঢাকা অচল করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা কলেজ ক্যাফেটেরিয়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন সাত কলেজ আন্দোলনের সমন্নয়ক আবু বকর।

তিনি বলেন, 'পূর্ব পরিকল্পনা ছাড়াই ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার ঐতিহ্যবাহী সাত কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যুক্ত করা হয়। অধিভুক্ত হওয়ার পর থেকে নানাবিধ সমস্যা পরিলক্ষিত হচ্ছে।

আবুবকর বলেন, 'দীর্ঘদিন একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা দুই বছর সেশনজটে পড়েছে। এমতাবস্থায় গণতান্ত্রিক পন্থায় নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে একাডেমিক সমস্যা সমাধানের জন্য পাঁচ দফা দাবিতে আমরা আন্দোলন করেছি। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে একটি কুচক্রী মহল অধিভুক্তি বাতিলের জন্য আন্দোলন করেছে এবং তা বাতিলের জন্য প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।'

তিনি অভিযোগ করেন, কুচক্রী মহলটির সঙ্গে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের কোনো সমন্বয় ও সম্পর্ক নেই। এরা একটি বিশৃঙ্খলা তৈরির চেষ্টা করছে। এটি তাদের একান্ত অভ্যন্তরীণ বিষয়। সে বিষয়ে আমাদের কিছু বলার নেই।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা অধিভুক্তি বাতিলের পক্ষে নয়, অধিভুক্তি বাতিল হলে কঠোর আন্দোলনে যাবেন সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। প্রয়োজনে শিক্ষার্থীরা সেশনজটের দুই বছরের হিসাব মাঠে দাঁড়িয়ে নেবে।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা কলেজ সমন্বয়ক কাজী নাসির, ইডেন কলেজ সমন্বয়ক ফৌজিয়া মিথিলা, সরকারি তিতুমীর কলেজ সমন্বয়ক মামুন শিকদার, সরকারি বাঙলা কলেজ সমন্বয়ক শহিদুল ইসলাম শাহেদ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ সমন্বয়ক নুরজাহান শিখা, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ সমন্বয়ক আশরাফুল ইসলাম আরিফ, বেগম বদরুন্নেছা সরকারি মহিলা কলেজ সমন্বয়ক সুলতানা পারভীন বৃষ্টি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।