আলু ৩০ টাকার বেশি নয়, চলবে বাজার মনিটরিং

অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে আগুন জ্বলছে নিত্যপণ্যের বাজারে। পিয়াজ, কাঁচামরিচ, চাল-ডালসহ প্রয়োজনীয় পণ্যগুলোর বাড়তি দামে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস উঠেছে। এর মাঝে এবার নতুন অস্বস্তির নাম আলু। ১৫-২০ টাকার আলু কয়েকদিনের ব্যবধানে ৫০-৫৫ টাকা হয়েছে। সস্তা এই পণ্যটি এখন কোথাও কোথাও ৬০ টাকায়ও বিক্রি হচ্ছে। যা কিছুদিন আগেও খুচরা বাজারে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হয়েছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়। তার আগে পণ্যটি ১৫-২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এখন অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে ইতিহাস গড়েছে আলুর দামে। 

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশে পর্যাপ্ত আলু আছে জানিয়ে খুচরা বাজারে ৩০ টাকা কেজি আলু বিক্রি করার নির্দেশনা দিয়েছে কৃষি বিপণন অধিদপ্তর। এজন্য মনিটরিং করার নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। একই সাথে হিমাগারে ২৩ এবং পাইকারী পর্যায়ে ২৫ টাকায় আলু বিক্রির নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। 

এদিকে, দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি পেঁয়াজ উৎপাদন এবং অব্যাহতহারে আমদানি থাকলেও কেবল ভারত রফতানি বন্ধের অজুহাতে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে ৮০ থেকে ১০০ টাকার ঘরে। কাঁচামরিচ আমদানি করতে হওয়ায় এর দাম এখন ৩০০ টাকার নিচে নামছেই না। এখন আলুও উঠে গেলো ৫০ টাকার ওপরে। এমন অবস্থা দেখে নিজেদের অবস্থা নিয়ে পরিহাসও হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। একটি পাবলিক পোস্টে দেখা গেছে নিয়ন্ত্রণহীন বাজার ব্যবস্থাপনার কারণে নিজেদের শোচনীয় অবস্থাকে বিদ্রূপ করে লেখা:  ‘‘৫০ টাকা কেজি ‘আলু’র সাথে ৩০০ টাকা কেজির ‘কাঁচামরিচ’ আর ৯০ টাকার পিঁয়াজ দিয়ে ভর্তা খাওয়ার পর শরীরে সেই একটা ভাব চলে আসে!’’

সর্বশেষ সংবাদ

অর্থ ও বাণিজ্য এর আরো খবর