পাল্টাপাল্টি সমাবেশ, ফরিদপুরে ১৪৪ ধারা জারি

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক সাংসদ কাজী জাফরউল্লাহ এবং ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন গ্রুপের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকায় এই ১৪৪ ধারা জারি করে উপজেলা প্রশাসন।
 
১৭ অক্টোবর, শনিবার সকাল ১০টায় সদরপুর উপজেলা চত্বরে জাফরউল্লাহ ও নিক্সন চৌধুরী গ্রুপের সমাবেশের কথা ছিলো। তাই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে সকাল ৯টা থেকে আগামীকাল রবিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত সমাবেশস্থলের এক কিলোমিটার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।
 
জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নিক্সন চৌধুরীর বিচারের দাবিতে সমাবেশের আয়োজন করে কাজী জাফরউল্লাহ গ্রুপ। আর নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকেরা নিক্সনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে একই স্থানে সমাবেশের ডাক দেয়। একই স্থানে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকায় পরিস্থিতি উতপ্ত হয়ে ওঠে। এমতাবস্থায় অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন।
 
প্রসঙ্গত, গত ১০ অক্টোবর চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাচনে আচরণ বিধি লঙ্ঘনের দায়ে গত ১৫ অক্টোবর নিক্সনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে জেলা নির্বাচন কমিশন।
 
মামলায় বলা হয়, ওই উপনির্বাচনে কেন্দ্রভিত্তিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিযুক্ত করায় জেলা প্রশাসক অতুল সরকারকে মোবাইল ফোনে কৈফিয়ত করেন ও সমর্থিত প্রার্থী পরাজিত হলে মহাসড়ক অবরোধসহ নানা প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন ও অশোভন আচরণ করেন নিক্সন।
 
আরো বলা হয়, এছাড়াও নির্বাচনের দিনে একটি ভোট কেন্দ্রের বুথের সামনে জাল ভোট দেয়া ও ধূমপান করার সময় এক পোলিং এজেন্টকে আটকের পর চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ভাঙ্গার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেদের অশালীন ভাষায় গালাগাল, ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং হুমকি দেন তিনি।
 
সংসদ সদস্য হয়ে নির্বাচনী এলাকায় উপস্থিত থেকে নির্বাচনের প্রচারণা ও কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে এবং নির্বাচনী দ্বায়িত্ব এবং সরকারি কর্তব্য পালনরত কর্মকর্তাদের হুমকি, গালাগাল ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে নিক্সন চৌধুরী নির্বাচনী বিধিমালা লঙ্ঘন করেছেন বলে ওই মামলায় উল্লেখ করা হয়।

সর্বশেষ সংবাদ

আইন আদালত এর আরো খবর