২০১ গম্বুজের চোখ জুড়ানো মসজিদ

টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার গোপালপুর। সেখানেই নির্মাণাধীন ২০১ গম্বুজ মসজিদ। নির্মাণাধীন সিঁড়ি বেয়ে মসজিদের ছাদে উঠা যায়। ছাদে উঠে গম্বুজগুলোর দিকে তাকাতেই চোখ জুড়িয়ে যায়। সোনালী রঙ্গের গম্বুজগুলো রোদের চিকমিক করে। মসজিদটির ছাদের মাঝখানে তৈরি করা হচ্ছে ৮১ ফুট উচ্চতার একটি বড় গম্বুজ। চারদিকে আছে ১৭ ফুট উচ্চতার ২০০টি গম্বুজ, যেগুলো এরই মধ্যে বিভিন্ন দামি পাথরে অলংকৃত করা হয়েছে। মূল মসজিদের চার কোনায় আছে ১০১ ফুট উচ্চতার চারটি মিনার। পাশাপাশি ৮১ ফুট উচ্চতার আরো চারটি মিনার তৈরি করা হয়েছে। মসজিদের দেয়ালের টাইলসে অঙ্কিত করা হচ্ছে পূর্ণ কোরআন এবং আল্লাহর ৯৯টি নাম, যা অনেকখানি সম্পন্ন হয়ে গেছে। যে কেউ বসে বা দাঁড়িয়ে মসজিদের দেয়ালে অঙ্কিত কোরআন পড়তে পারবেন।
মসজিদের ছাদে উঠে গম্বুজ গুলোর দিকে তাকাতেই চোখ জুড়িয়ে যায়। ছাদে উঠে এর কারুকার্য দেখে বিমুগ্ধ হবেন। 
১৫ বিঘা জমির উপর নির্মাণাধীন এই মসজিদের প্রধান দরজা নির্মাণে ব্যবহার করা হয়েছে ৫০ মণ পিতল, আজান দেওয়ার জন্য মসজিদের সবচেয়ে উঁচু মিনারে রয়েছে আলাদা রুম। নির্মাতাদের দাবি, এটিই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি গম্বুজবিশিষ্ট এবং দ্বিতীয় উচ্চতম মিনারের মসজিদ হতে যাচ্ছে। 
মসজিদটির নির্মাণ পর্যায়েই এটি সাধারণের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। স্থাপনাটি দেখতে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ভিড় করছেন দর্শনার্থীর। এর মধ্যেই মসজিদটির নির্মাণ কাজ ৮০ ভাগ শেষ হয়েছে। 
মসজিদটিকে ঘিরে গড়ে উঠেছে একটি বাজার, যা এটি তৈরির আগে ছিল না। মসজিদটি নির্মাণের আগে এখানে কোন বাজার ছিলনা কোন দোকানপাট ছিলনা। আস্তে আস্তে বাজারে পরিসর আরো বাড়ছে। বাজারকে ঘিরে অনেকেরই আয়-রোজগার হচ্ছে।