টানা ৬০ বছর প্রতি সপ্তাহে রক্ত দিয়েছেন জেমস

অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক জেমস হেরিসন টানা ৬০ বছর যাবৎ প্রতি সপ্তাহে রক্ত দিয়েছেন। এভাবে রক্ত দিয়ে তিনি বাঁচিয়েছেন ২৪ লাখ অস্ট্রেলিয়ান শিশুর মহামূল্যবান জীবন। রক্ত দেওয়া শেষ করেন ২০১৮ সালে।
 
চার মাস পরপর রক্ত দেওয়ার নিয়ম থাকলেও জেমস প্রতি সপ্তাহে রক্ত দিয়ে এতগুলো শিশুর জীবন বাঁচিয়েছেন। এর স্বীকৃতি স্বরূপ অস্ট্রেলিয়া সরকার জেমস হ্যারিসনকে দিয়েছেন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মাননা ‘মেডাল অব দ্য অর্ডার অব অস্ট্রেলিয়া’।
 
অস্ট্রেলিয়ান রেড ক্রস ব্লাড সার্ভিস এ তথ্য দিয়েছে।
 
অস্ট্রেলিয়ার ওষুধ প্রশাসন জানান, জেমসের রক্তে অদ্ভুত ধরনের রোগপ্রতিরোধী অ্যান্টিবডি থাকায় সেটি দিয়ে অ্যান্টি ডি নামের জীবন রক্ষাকারী ইনজেকশন তৈরি করা হতো। 
 
এ ইনজেকশনের মাধ্যমে শিশুদের মৃত্যুঝুকি অনেকটা কমে যায়। জেমস মূলত ১৪ বছর বয়সে অন্যের দেওয়া রক্তে জীবন ফিরে পেয়েছিলেন। এরপর পূর্ণাঙ্গ বয়স হওয়ার পর থেকে নিয়মিত রক্ত দিতে শুরু করেন তিনি।
 
এভাবে রক্ত দেওয়ার এক পর্যায়ে ডাক্তাররা তার রক্তে এ মহামূল্যবান উপাদানটি পায়। পরে এটিকে ইনজেকশনের মাধ্যমে ব্যবহার করা শুরু করেন। তিনি এজন্য প্রতি সপ্তাহে রক্ত দিতে শুরু করেন। এভাবে টানা ৬০ বছর রক্ত দেন তিনি। 
 
চিকিৎসক ফলকেনমির জানান, অস্ট্রেলিয়াতে প্রতি ১০০ জনের ১৭ জন নারীর ক্ষেত্রেই রেসাস নেগেটিভ রক্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। এসব ক্ষেত্রে অ্যান্টি ডি ইনজেকশনই একমাত্র ভরসা। জেমসের রক্ত অসাধারণ প্রকৃতির। গত বছর পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়াতে তৈরি হওয়া অ্যান্টি ডি ইনজেকশনের প্রতিটা ব্যাচই তৈরি হয়েছে জেমস হ্যারিসনের রক্ত থেকে।