সুন্দরবনে র‍্যাবের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' শামসু বাহিনীর দুই সদস্য নিহত
খবরের অন্তরালে প্রতিবেদক :

বাগেরহাটের সুন্দরবনে র‍্যাবের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' জলদস্যু শামসু বাহিনীর দুই সদস্য নিহত হয়েছে। আজ বুধবার সকালে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বাগেরহাট জেলার শরণখোলা উপজেলাধীন বনের দুধমুখী এলাকার বাদামতলী খালে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। প্রায় আধাঘণ্টা ধরে বন্দুকযুদ্ধের একপর্যায়ে দস্যুরা পিছু হটলে র‍্যাব সদস্যরা বনে তল্লাশি চালিয়ে দুই দস্যুর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দস্যুদের ব্যবহৃত দেশি-বিদেশি ১১টি আগ্নেয়াস্ত্র, ২২৭টি গুলি এবং বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। বন্দুকযুদ্ধ চলাকালে র‍্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছেন বলে র‍্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। নিহত দুই দস্যু হলো হোসেন মোল্লা (৩০) ও আলামীন (২৮)। তারা সুন্দরবনের কুখ্যাত জলদস্যু শামসু বাহিনীর সক্রিয় সদস্য বলে র‍্যাব জানায়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে র‍্যাব সদস্যরা তাদের পরিচয় জানাতে পারেনি। র‍্যাব বরিশাল ৮ এর উপ-অধিনায়ক মেজর আদনান কবীর জানান, র‍্যাবের দুটি দল গতকাল  মঙ্গলবার রাতে সুন্দরবনে অভিযান শুরু করে। র‍্যাব সদস্যরা সাধারণ বেশে বনের মধ্য দিয়ে দুবলারচরে যাচ্ছিলেন। আজ বুধবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে তারা বনের বাদামতলী খালে পৌঁছালে ১০ থেকে ১৫ জনের একদল জলদস্যু র‍্যাব সদস্যদের জেলে মনে করে গুলিবর্ষণ করতে থাকে। এ সময় র‍্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। পৌঁনে ৯টা পর্যন্ত দস্যুদের সঙ্গে গোলাগুলির একপর্যায়ে দস্যুরা পিছু হটলে বন তল্লাশি করে শামসু বাহিনীর দুই সদস্যের লাশ উদ্ধার করা হয়। অপর দস্যুরা বনের গহীনে পালিয়ে যায়। এ সময় বনে তল্লাশি চালিয়ে দস্যুদের ব্যবহৃত ১১টি দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ২২৭টি গুলিসহ তাদের ব্যবহৃত বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। দস্যুদের লাশ, অস্ত্র এবং গুলি শরণখোলা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

জন্ম ও মৃত্যু এর আরো খবর